• আপডেট টাইম : 03/01/2021 06:26 PM
  • 1862 বার পঠিত
  • মোঃ কামরুজ্জামান, সাভার ঢাকার থেকে
  • sramikawaz.com

আশুলয়িায় একটি পোশাক কারখানার সামনে মৃত স্বামী মো. নজরুল ইসলাম (৫৫) এর মরদহে নিয়ে বিচার ও ক্ষতিপৃরনের দাবিতে অবস্থান করছেন রহিমা নামে এক মধ্য বয়সী মহিলা ।  ৩ জানুয়ার রোববার সকাল থেকে এখন র্পযন্ত আশুলিয়ার পলাশবাড়িতে অবস্থিত স্কাই লাইন পোশাক কারখানার সামনে এ অবস্থান করছেন। 

এর আগ আজ ভোর ৪ টার দকিে পলাশবাড়ীতে ভাড়া বাসায় মৃত্যু হয় নজরুল ইসলামের। 

নিহত নজরুল ইসলাম শরীয়তপুরের নড়িয়া থানার বাসিন্সদা। সে স্কাই লাইন গ্রুপে ১২ বছর যাবৎ গাড়িচালক হিসাবে চাকরি করছিলেন। 

নিহত স্ত্রী রহিমা জানান, গত কয়কে মাস যাবৎ তার স্বামীর বুকে ব্যথা অনুভব হয়। পরে চিকিৎসা কে দেখানো হলে তার বুকে পানি জমছেে বলে প্রথমে ১৫ দিন বিশ্রাম নিতে বলা হয়ছে। কিন্তু কারখানায় ছুটি চাওয়া হলে তাকে ছুটি না দিয়ে কাজ করানো হয়। পরর্বতীতে গত ২৯ ডিসেম্বর  সে গুরুতর অসুস্থ হয়ে কারখানা কর্তৃপক্ষের কাছে ছুটির আবেদন করলেও ছুটি পায়নি । উল্টো কারখানার কর্মকর্তারা তাকে চাকরি ছেড়ে দিতে বলেছেন । পরে গতকাল ৪টার দিকে বাসার শৌচাগারে স্টক করে মৃত্যু হয় তার।

রহিমার অভিযোগ , তার স্বামীকে কারখানা থেকে ছুটি দেওয়া হলে ভালো চিকিৎসা দিতে পারতো। এছাড়া চিকিৎসাক বিশ্রাম নিতে বলেছিল সেটা করা হলে তার স্বামী বেচেঁ থাকতনে। এর পুরো দায় কারখানার।

এসময় তিনি কান্না জরতি কন্ঠে বলনে, 'আমি এখন বিধবা হয়ে গেলাম । দুই সন্তান নিয়ে এখন কোথায় যাবো কি করবো? তাই কারখানার সামনে লাশ নিয়ে বসে আছি । আমি এর বিচার চাই। আমি আমার স্বামীকে আর পাবো না। তবে আর কারো বুক যেনো এভাবে খালি না হয়।'

এ বিষয়ে কারখানার প্রশাসন বিভাগের আরাফাত হোসেন বলেন , আসলে তার স্বামীর হটাৎ করেই মৃত্যু হয়ছে। রহিম্ কারখানার সামনে আসলে আমরা নজরুলরে সকল পাওনাদী বুঝিায়ে দিয়েছি ।

অন্যদকিে কারখানার বড় গাফলতরি উল্লখ্যে করে বাংলাদশে বস্ত্র ও পোশাক শিল্প শ্রমিকলীগের কেন্দ্রিয় সাংগঠনিক সম্পাদক সারোয়ার হোসনে বলেন , বিষয় টি নিয়ে কারখানা র্কতৃপক্ষের সাথে আমরা কথা বলেছি তারা সর্ম্পূণ ভাবে উদাসিনতার একটি ভাব নিয়েছে কারখানা র্কতৃপক্ষ এখানে প্রতারণা করছে। শ্রমিকের কারখানায় কাজের বয়স ১২ বছর কিন্তু কারখানা র্কতৃপক্ষ ৫ বছরে পাওনাদি দিয়েছে যেটা শ্রম আইন লংঘন করা হয়ছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..
ফেসবুকে আমরা...