• আপডেট টাইম : 06/11/2020 08:53 AM
  • 23 বার পঠিত
  • আওয়াজ প্রতিবেদক
  • sramikawaz.com

 

আবহাওয়া অনুকূলে থাকলে পদ্মা সেতুর ৩৬তম স্প্যান আজ শুক্রবার (৬ নভেম্বর) বসানো হবে। এতে দৃশ্যমান হবে সেতুর ৫ হাজার ৪০০ মিটার।

মুন্সিগঞ্জের লৌহজং উপজেলার মাওয়া প্রান্তে সেতুর ২ ও ৩ নম্বর পিলারের উপর ‘১-বি’ নামের এ স্প্যান বসানো হবে। এরমধ্য দিয়ে সেতুর ৫ হাজার ৪০০ মিটার দৃশ্যমান হবে।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন পদ্মাসেতুর নির্বাহী প্রকৌশলী দেওয়ান মো. আব্দুল কাদের।

তিনি জানান, মুন্সিগঞ্জের লৌহজং উপজেলার কুমারভোগ কন্সট্রাকশন ইয়ার্ড থেকে বৃহস্পতিবার বেলা ১১টার দিকে স্প্যান নিয়ে ভাসমান ক্রেন তিয়ান-ই নির্ধারিত পিলারের উদ্দেশ্যে রওনা হয়, পরে বেলা সাড়ে ১২টার দিকে নির্ধারিত পিলারের কাছে স্প্যান পৌঁছায়। এরপর সংশ্লিষ্ট প্রকৌশলীরা স্প্যানটি বসানোর কার্যক্রম শুরু করেছে। শুক্রবার সকালে স্প্যান বসানো সম্পন্ন হবে।

এদিকে, ৩৬তম স্প্যান বসানো হলে আর বাকি থাকবে ৫ টি স্প্যান। এরই মধ্যে জাজিরা প্রান্তে সবগুলো স্প্যান বসানোর কাজ সম্পন্ন হয়েছে। গত ৩১ অক্টোবর ৩৫তম স্প্যান বসানো হয়। ৩৬ তম স্প্যান বসানো হলে আগামী ১১ নভেম্বর ৯ ও ১০ নম্বর পিয়ারে ৩৭তম স্প্যান ‘২-সি’, ১৬ নভেম্বর ১ ও ২ নম্বর পিয়ারে ৩৮তম স্প্যান ‘১-এ’, ২৩ নভেম্বর ১০ ও ১১ নম্বর পিয়ারে ৩৯তম স্প্যান ‘২-ডি’, ২ ডিসেম্বর ১১ ও ১২ নম্বর পিয়ারে ৪০তম স্প্যান ‘২-ই’ ও ১০ ডিসেম্বর ১২ ও ১৩ নম্বর পিয়ারে ৪১তম স্প্যান স্প্যান ‘২-এফ’ বসানোর পরিকল্পনা রয়েছে।

এছাড়া সেতুর ২ হাজার ৯১৭টি রোডওয়ে স্লাবের মধ্যে ১ হাজার ৪১টির বেশি রোড স্ল্যাব বসানো হয়েছে। আর ২ হাজার ৯৫৯টি রেলওয়ে স্ল্যাবের মধ্যে এখন পর্যন্ত বসানো হয়েছে ১ হাজার ৫০০টির বেশি।

২০১৪ সালের ডিসেম্বরে পদ্মাসেতুর নির্মাণকাজ শুরু হয়। ২০১৭ সালের ৩০ সেপ্টেম্বর ৩৭ ও ৩৮ নম্বর খুঁটিতে প্রথম স্প্যান বসানোর মধ্য দিয়ে দৃশ্যমান হয় পদ্মাসেতু। এরপর একে একে বসানো হয় ৩৪টি স্প্যান। ৪২টি পিলারে ১৫০ মিটার দৈর্ঘ্যের ৪১টি স্প্যান বসিয়ে ৬ দশমিক ১৫ কিলোমিটার দীর্ঘ পদ্মাসেতু নির্মাণ করা হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..
ফেসবুকে আমরা...