sa.gif

করোনাকালে ২৭ ভাগ শ্রমিক খাওয়া কমিয়ে পরিস্থিতি সামাল দিচ্ছে
আওয়াজ প্রতিবেদক :: 10:42 :: Friday August 28, 2020 Views : 148 Times


করোনা মহামারীর প্রভাবে তৈরি পোশাক খাতের ১ হাজার ৯১৫টি কারখানা লে-অফ হয়েছে। বেকার হয়েছেন ৩ লাখ ২৪ হাজার ৬৮৪ জন শ্রমিক। এদিকে করোনাকালীন সংকটে নিয়মিত বেতন না পাওয়ায় ও বেশির ভাগ শ্রমিকের জমানো অর্থ না থাকায় চরম খাদ্য সংকটে পড়েন পোশাক শ্রমিকরা। ফলে ২৭ শতাংশ শ্রমিক নিজেদের খাদ্য চাহিদা কমিয়েছেন।

২৭ আগস্ট বৃহস্পতিবার এক সংবাদ সম্মেলনে এ পর্যালোচনা জানিয়েছে বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব লেবার স্টাডিজ (বিলস)।

বিলস জানিয়েছে, বকেয়া বেতন-বোনাস, শ্রমিক ছাঁটাই, নির্যাতন ও কারখানা বন্ধের ইস্যুতে তৈরি পোশাক শিল্পে আন্দোলনের ঘটনা সবচেয়ে বেশি ঘটে, করোনাকালেও এর ব্যতিক্রম ঘটেনি। বর্তমান সময়ের এ কভিড-১৯ পরিস্থিতিতে নানা বিপর্যয়ের মধ্যে বেড়েছে শ্রমিক ছাটাইয়ের হার। ৮৭টি কারখানায় শ্রমিক ছাটাই হয়েছে সাড়ে ২৬ হাজার ও অনেক ক্ষেত্রেই আইন না মেনে ছাটাইয়ের ঘটনা ঘটছে। শ্রমিকরা বকেয়া বেতন-ভাতা ও ন্যায্য ক্ষতিপূরণ পাচ্ছেন না। করোনাকালীন সংকটে এ খাতে বেকার হয়েছেন প্রায় ৩ লাখ ২৪ হাজার ৬৮৪ জন শ্রমিক। সব মিলিয়ে বন্ধ ও লে-অফ হয়েছে প্রায় ১ হাজার ৯১৫টি কারখানা। এছাড়া দিন দিন সারা বিশ্ব প্রযুক্তিনির্ভর হয়ে পড়ার কারণে নিশ্চিতভাবে পোশাক খাতেও বাড়বে উন্নত প্রযুক্তির ব্যবহার। এতে এ খাতে কর্মরত ৬০ শতাংশ শ্রমিকের চাকরি হারানোর আশঙ্কা করা হচ্ছে।

জাতীয় প্রেস ক্লাবে অনুষ্ঠিত কভিড-১৯: তৈরি পোশাক শিল্পে শোভন কাজের পরিস্থিতি পর্যালোচনা শীর্ষক সংবাদ সম্মেলনে কভিড-১৯ মহামারীর কারণে তৈরি পোশাক শিল্পের শোভন কাজের বর্তমান পরিস্থিতি তুলে ধরা হয়। এ সময় মহামারী সময়ে তৈরি পোশাক শিল্পের শ্রমিকদের টিকে থাকার জন্য সংগ্রাম করতে হচ্ছে উল্লেখ করে ট্রেড ইউনিয়ন নেতারা শ্রমিকদের সহায়তার লক্ষ্যে সরকারকে উদ্যোগী হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন।

করোনার ভয়াবহ সংকটের সময় তৈরি পোশাক শিল্প খাতের শ্রমিকদের জীবনযাত্রার শোচনীয়তা আরো প্রকট হয়েছে উল্লেখ করে সংবাদ সম্মেলনের লিখিত বক্তব্যে বলা হয়, লকডাউন চলাকালে তৈরি পোশাক শিল্পের শ্রমিকদের মজুরি না পাওয়া, সরকার ঘোষিত প্রণোদনা পাওয়ার ক্ষেত্রে অনিশ্চয়তা, কারখানা খোলা ও বন্ধ রাখার বিষয়ে বিভ্রান্তিকর সিদ্ধান্তের কারণে এ শিল্পের শ্রমিকরা সীমাহীন দুর্ভোগের শিকার হন। এছাড়া আবাসস্থল সংকট, বিনা নোটিসে শ্রমিক ছাঁটাই, লে-অফ ঘোষণা ও এ প্রাদুর্ভাবের সময় সামাজিক দূরত্বকে তুচ্ছ করে শ্রমঘন এলাকাগুলোতে বেতন আদায়ের জন্য শ্রমিকদের বিক্ষোভ, সবকিছু মিলিয়ে এ মহামারীর সময়েও তৈরি পোশাক শিল্পের শ্রমিকদের টিকে থাকার জন্য সংগ্রাম করতে হচ্ছে। করোনাকালীন সংকটে নিয়মিত বেতন না পাওয়ায় এবং বেশির ভাগ শ্রমিকের জমানো অর্থ না থাকায় চরম খাদ্য সংকটে পড়েন পোশাক শ্রমিকরা। ফলে ২৭ শতাংশ শ্রমিক নিজেদের খাদ্য চাহিদা কমিয়েছেন।

যেসব কারখানায় ট্রেড ইউনিয়ন রয়েছে, সেসব কারখানা বন্ধ করে দেয়া হচ্ছে অভিযোগ করে সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়, কারখানা বন্ধ হচ্ছে, লে-অফ হচ্ছে, শ্রমিক ছাঁটাই হচ্ছে, সেসব বিষয়ে সরকারের কোনো পদক্ষেপ দেখা যাচ্ছে না। কিন্তু শ্রমিকদের সংগঠিত হওয়া থেকে শুরু করে ট্রেড ইউনিয়ন নিবন্ধন সবই বন্ধ রাখা হয়েছে। নেতারা অভিযোগ করে বলেন, কভিড-১৯ পরিস্থিতিতে শ্রমিকদের স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিত করে কাজ করানোর কথা থাকলেও অধিকাংশ কারখানায় তা মানা হচ্ছে না। কভিড-১৯ সময়ে কারখানায় নিরাপত্তা ব্যবস্থা না থাকায় শ্রমিকরা নিরাপত্তা ঝুঁকি, চাকরির ঝুঁকি ও কাজ করেও সময়মতো মজুরি না পাওয়ার ঝুঁকিতে রয়েছে।

বিল্স ভাইস চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসাইনের সভাপতিত্বে এবং বিল্স ভাইস চেয়ারম্যান ও ইন্ডাস্ট্রিঅল বাংলাদেশ কাউন্সিলের ঢাকা-মিরপুর ক্লাস্টার কমিটির সমন্বয়কারী আমিরুল হক আমিনের সঞ্চালনায় সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন বিলেসর উপদেষ্টা পরিষদ সদস্য ও শ্রমিক-কর্মচারী ঐক্য পরিষদ-স্কপের যুগ্ম সমন্বয়কারী নইমুল আহসান জুয়েল।

সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাব দেন ইন্ডাস্ট্রিঅল বাংলাদেশ কাউন্সিল-আইবিসি সাধারণ সম্পাদক চায়না রহমান, ইন্ডাস্ট্রিঅল বাংলাদেশ কাউন্সিল টঙ্গী-গাজীপুর ক্লাস্টার কমিটির সমন্বয়কারী সালাউদ্দিন স্বপন, বাংলাদেশ ফেডারেশন অব ওয়ার্কার্স সলিডারিটির সভাপতি রুহুল আমিন, বাংলাদেশ মুক্ত শ্রমিক ফেডারেশনের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক শহীদুল্লাহ বাদল ও বিল্স পরিচালক নাজমা ইয়াসমীন। এছাড়া সংবাদ সম্মেলনে তৈরি পোশাক শিল্পের ট্রেড ইউনিয়ন নেতারা, শ্রমিক-কর্মচারী ঐক্য পরিষদ-স্কপ নেতারা, ইন্ডাস্ট্রিঅল বাংলাদেশ কাউন্সিল নেতারা, গণমাধ্যমের প্রতিনিধিরা এবং বিল্স কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।



Comments





Pakkhik Sramik Awaz
Reg: DA5020
News & Commercial:
11/1/B, Kobi Josimuddin Road, Uttor Komlapur,Motijheel, Dhaka-1000
email: sramikawaznews@gmail.com
Contact: +880 1972 200 275, Fax: +880 77257 5347

Legal & Advisory Panel:
Acting Editor: M M Haque
Editor & Publisher: Zafor Ahmad

Developed by: Expert IT Solution