sa.gif

’বন্ধ পাটকল চালু এবং করোনায় কর্মহীন শ্রমিকদের রাষ্ট্রীয় উদ্যোগে কাজ, চিকিৎসা ও রেশনিং চালু করো’
আওয়াজ প্রতিবেদক :: 00:09 :: Thursday August 27, 2020 Views : 186 Times

বিশ্বব্যাংক, আইএমএফের নির্দেশে দেশীয় কাঁচামাল নির্ভর পাটকল বন্ধ নয়, পাটকল শ্রমিকদের সকল বকেয়া পাওনা পরিশোধ ও আধুনিকায়ন করা; করোনায় চাকুরিচ্যূত-কর্মহীন শ্রমিকদের রাষ্ট্রীয় উদ্যোগে কাজ, খাদ্য, চিকিৎসা ও পূর্ণাঙ্গ রেশনিংয়ের দাবি জানিয়েছে বাংলাদেশ ট্রেড ইউনিয়ন সংঘ।


২৬ আগস্ট বিকেলে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে এক শ্রমিক সমাবেশে সংগঠনটির নেতৃবৃন্দ এ দাবি জানা। বাংলাদেশ ট্রেড ইউনিয়ন সংঘের সভাপতি হাবিবউল্লা বাচ্চুর সভাপতিত্বে ও কেন্দ্রীয় সদস্য আতিকুল ইসলাম টিটোর পরিচালনায় অনুষ্ঠিত সমাবেশে বক্তব্য রাখেন জাতীয় গণতান্ত্রিক ফ্রন্টের কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি মো. খলিলুর রহমান, যুগ্ম-সম্পাদক মো. ইয়াছিন, বাংলাদেশ ট্রেড ইউনিয়ন সংঘের সহ-সাধারণ সম্পাদক প্রকাশ দত্ত ও রফিকুল ইসলাম, দপ্তর সম্পাদক রহমত আলী, বাংলাদেশ হোটেল রেস্টুরেন্ট সুইটমিট শ্রমিক ফেডারেশনের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার হোসেন প্রমূখ।

সমাবেশে বক্তারা বলেন, এক সময়ে এই দেশের মানুষের দাবির প্রেক্ষাপটে কৃষিজমিতে উৎপাদিত পাটকে ভিত্তি করে গড়েছিল পাটকল। বাংলাদেশের অভ্যূদয়ের পর পাটকলসমূহকে রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন শিল্প হিসাবে ঘোষণা করা হয়। রাষ্ট্রের যথাযথ পরিচালনার পলিসিগত দুর্বলতা, মাথাভারী আমলাতান্ত্রিক প্রশাসন এবং লুটপাট ও অনিয়মের কারণে এই শিল্পে সংকট দেখা দিলে সেই সংকট দূর করার বদলে অতীত সরকারের আমলে আইএমএফ ও বিশ্ব্যাংকের প্রেসক্রিপসনে প্রথমে ব্যক্তিমালিকানায় কিছু মিল হস্তান্তর এবং পরবর্তীতে গোল্ডেন হ্যান্ডশেকের মাধ্যমে বিশ্বের বৃহত্তম পাটকল আদমজী বন্ধ করে দেশীয় কাঁচামালের উপর ভিত্তি করে গড়ে ওঠা জাতীয় শিল্প পাটকল বিক্রির যাত্রা শুরু হয়।

তখন ঐ ঘটনার সমালোচনা করা হলেও অতীত থেকে বর্তমান সময়েও ঐ একই নীতি নির্দেশনা মেনে চলার কারণে পরিকল্পিতভাবেই এই মিলগুলোকে চুড়ান্তভাবে বন্ধ ও ব্যক্তিমালিকানায় হস্তান্তর করার পথেই হাঁটা হচ্ছে। আর নিজেদের লুটপাট ও ষড়যন্ত্রকে ধামাচাপা দিতে শ্রমিকদের ঘাড়ে দোষ চাপিয়ে পরিত্রাণের অপচেষ্টা কার্যকর করা হচ্ছে।


নেতৃবৃন্দ বলেন, নূন্যতম জাতীয়তাবোধ বা দেশপ্রেম থাকলে শ্রমিকদের পক্ষ থেকে এবং এবিষয়ে বিশেষজ্ঞরা সকল অনিয়ম দূর্নীতি দূরপূর্বক যোগ্যতা, সততা ও জবাবদিহিতার ব্যবস্থা কার্যকর করে মিল আধুনিকায়ন এবং কর্মরত দক্ষ সকল শ্রমিকদের প্রয়োজনীয় নতুন কারিগরী জ্ঞানের প্রশিক্ষন দিয়ে মিলগুলিকে লাভজনক করার আশু ও দীর্ঘমেয়াদি পরিকল্পনা করতেন। কিন্তু তা না করে বাংলাদেশে এসব মিলগুলো পিপিপি এর মাধ্যমে শ্রমিকদেরকে ঝুঁকিতে ফেলে কার্যত ব্যক্তিমালিকানায় হস্তান্তর করার পথেই হাটছে সরকার।

আমাদের দেশের এ ধরণের পদক্ষেপের ফলাফল হিসাবে আমরা দেখেছি তা সম্পদ আত্মসাতের মহাব্যবস্থা হওয়া ছাড়া আর কোন ইতিবাচক ফলাফল আনেনি।

নেতৃবৃন্দ সরকারের এই ধরণের পদক্ষেপের তীব্রনিন্দা জানান এবং এই সিদ্ধান্ত বাতিল করে এর চেয়ে কম খরচে মিলগুলিকে আধুনিকায়ন এবং শ্রমিকদের পাওনা পরিশোধ করে চাকরি অব্যাহত রাখার জোর দাবি জানান।

নেতৃবৃন্দ বলেন, আমরা দেখেছি সরকার ব্যক্তিমালিকানাধীন আমদানিকৃত কাঁচামালের উপর ভিত্তিতে পরিচালিত নানা শিল্পকে জনগণের টাকায় প্রণোদনা ও আর্থিক সুযোগ সুবিধা দিয়ে চললেও জাতীয় শিল্প হিসাবে পাটশিল্পের যে সম্ভাবনা তাকে আমলে না নিয়ে জাতীয় ও জনস্বার্থ বিরোধী সিদ্ধান্ত কার্যকর করে সাম্রাজ্যবাদ ও তাদের সংস্থা সমূহের নীতি নির্দেশ ও তাদের দালাল পুঁজির মালিকদের মুনাফার স্বার্থে পদক্ষেপ নিয়েছে।



Comments





Pakkhik Sramik Awaz
Reg: DA5020
News & Commercial:
11/1/B, Kobi Josimuddin Road, Uttor Komlapur,Motijheel, Dhaka-1000
email: sramikawaznews@gmail.com
Contact: +880 1972 200 275, Fax: +880 77257 5347

Legal & Advisory Panel:
Acting Editor: M M Haque
Editor & Publisher: Zafor Ahmad

Developed by: Expert IT Solution