sa.gif

বিজিএমইএ নয়, এ্যাকোর্ডের মেয়াদ শেষে সংস্কারকৃত কারখানাকে আসিসি'র মাধ্যমে সনদ দেবে সরকার
আওয়াজ প্রতিবেদক :: 08:55 :: Sunday September 8, 2019 Views : 495 Times

জাতীয় উদ্যোগ এর অধীন রেমিডিয়েশন কো-অডিনেশন সেল-আসিসি এর মাধ্যমে শতভাগ সংস্কারকৃত গার্মেন্টস কারখানাকে সনদ প্রদান করবে সরকার। এ্যাকোর্ড তৈরি পোশাক কারখানার নিরাপদ বলে সনদ দিচ্ছে ২০২০ সালের পরবর্তি সে সনদ দেবে আরসিসি। ৫ সেপ্টম্বর শনিবার আশুলিয়ায় কারখানা পরিদর্শন ও কারখানা অধিদপ্তরের অধীন আরসিসির মাধ্যমে শতভাগ সংস্কারকৃত সবুজ কারখানা ফ্যাশন ডটকম লি. পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময়কালে শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের সচিব কে এম আলী আজম একথা জানান।


সচিব এমন সময় এ্যাকোর্ড এর দায়িত্ব ভার গ্রহণে সরকারের উদ্যোগের কথা জানালেন, যখন তৈরি পোশাক প্রস্তুত ও রপ্তানিক কারক সমিতি (বিজিএমইএ) এ্যাকোর্ড এর কার্যভার গ্রহণে তোড়-জোড় শুরু করেছে। এ ব্যাপারে সংগঠন শ্রমিক সংগঠনগুলোর মধ্যেও চলছে মতভেদ। দুয়েকটি শ্রমিক সংগঠন বাদে সবাই চাচ্ছে এ্যাকোর্ডের কাজটি সরকারই বুঝে নিক। অধিকাংশ শ্রমিক সংগঠনের যুক্তি এ্যাকোর্ড কর্ম-উদ্যোগ হস্তান্তরে বিজিএমইএ নয়, সরকারই পারে মেয়াদ শেষে এ্যাকোর্ডকে হস্তান্তর নিতে। বিজিএমইএ এ্যাকোর্ড হস্তান্তরে নিলে পেশাগত নিরাপত্তার যে অগ্রগতি হয়েছে তা থমকে যাবে, উপেক্ষিত হবে শ্রমিকদের পেশাগত নিরাপত্তার দাবি। সরকারের কাছে এ দায়িত্ব থাকলে শ্রমিকদের দাবি করার সুযোগ থাকবে। বিজিএমইএ এর কাছে এ দায়িত্ব গেলে গার্মেন্ট মালিকরা বিজিএমইএকে যেভাবে পরিচালনা করছে, এ্যাকোর্ডের বাকী কাজগুলোও সেভাবে পরিচালনা করবে।


শনিবার কারখানা পরিদর্শনকালে শ্রম সচিব বলেন, সরকার কারখানা সংস্কারে দেশীয় প্রতিষ্ঠানকে স¶ম করতে চায়। সংস্কার কাজের মান উন্নয়নের জন্য কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন অধিদপ্তরে অত্যাধুনিক যন্ত্রাংশ উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। এতে আরসিসি অত্যন্ত স¶মতার সাথে সংস্কার কার্যক্রম চালাতে পারবে। সকলকে মিলে বাকি কারখানাগুলোর সংস্কার এগিয়ে নিতে হবে।
সংস্কারকৃত কারখানাগুলো সনদ পাওয়ার যোগ্য হলে দ্রুত সেগুলোকে সনদ প্রদানের ব্যবস্থা করতে কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন অধিদপ্তরের কর্মকর্তাদের নির্দেশ দেন। কারখানাগুলো সরকারের কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন অধিদপ্তরের সনদ পেলে বিশ্বের নামকরা ক্রেতাদের নিকট থেকে ক্রয় আদেশ পাবেন বলে সচিব আশা প্রকাশ করেন। 

এসময় কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন অধিদপ্তরের মহাপরিদর্শক (অতিরিক্ত সচিব) শিবনাথ রায় জানান, এক'শ পচিঁশটি চেক লিস্টের মাধ্যমে সংস্কার কাজের গুনগত মান দেখা হয়। বর্তমানে আরসিসির অধীনে এক হাজার সাত'শ পাঁচটি কারখানা সংস্কার কার্যক্রম চলছে। ইতোমধ্যে এ্যাকোর্ড তাদের সংস্কারকৃত এক'শটি কারখানা কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন অধিদপ্তরের নিকট হস্তান্তর করেছে। আরসিসি কারখানার স্ট্রাকচারাল, ফায়ার এবং ইলেকট্রিক সেইফটিকে প্রাধান্য দেয়।


পরিদর্শনকালে ফ্যাশন ডটকম লি. এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও সিইও খান মইনুল আলম, কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন অধিদপ্তরের উপ-মহাপরিদর্শক (সেইফটি) কামরুল হাসান ও কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন অধিদপ্তরের ঢাকা কার্যালয়ের উপ-মহাপরিদর্শক আহমেদ বেলালসহ আরসিসি এবং অধিদপ্তরের উর্ধতন কর্মকর্তাগন উপস্থিত ছিলেন।


পরে শ্রম সচিব এ্যাকোর্ডের মাধ্যমে সংস্কার করা আসিসির নিকট হস্তান্তরিত ডেবনিয়ার গ্রæপের ডেবনিয়ার লি. এবং অরবিটেক্স নীটওয়্যার কারখানার সংস্কার কার্যক্রম খতিয়ে দেখেন। এসময় ডেবনিয়ার গ্রæপের কর্মকর্তাগন ঊপস্থিত ছিলেন। 

জানা গেছে, এ্যাকোর্ড এর মেয়াদ শেষে দায়িত্বভার গ্রহণের পর প্রস্তুতি নিচ্ছে তৈরি পোশাক প্রস্তুত ও রপ্তানিককারক সমিতি (বিজিএমইএ)। এ ব্যাপারে তারা আলোচনা সভাও সম্পন্ন করেছে। এ সভায় স্থানীয় ও আন্তর্জাতিক একটি করে উপস্থিত ছিল। স্থানীয় শ্রমিক সূত্রগুলো জানায়,  একটি সংগঠন বাদে অধিকাংশ সংগঠন এ্যাকোর্ড এর কার্যভার হস্তান্তরে বিজিএমইএর প্রস্তুতির সমালোচনা করেছে। 



Comments





Pakkhik Sramik Awaz
Reg: DA5020
News & Commercial:
85/1 Naya Paltan, Dhaka 1000
email: sramikawaznews@gmail.com
Contact: +880 1972 200 275, Fax: +880 77257 5347

Legal & Advisory Panel:
Acting Editor: M M Haque
Editor & Publisher: Zafor Ahmad

Developed by: Expert IT Solution