sa.gif

বেতন না অরনা টেক্সের বিরুদ্ধে প্রতারনার অভিযোগ মেহদী হাসানের
আ্ওয়াজ ডেস্ক :: 13:10 :: Wednesday September 4, 2019 Views : 70 Times


পাওনা বেতন পরিশোধ না করেই কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের চাকরিচ্যুত করার অভিযোগ উঠেছে অরনা টেক্স লিমিটেড নামের একটি কোম্পানীর বিরুদ্ধে।

শুধু তাই নয়, ১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবসে কর্মদিবস না থাকায় সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের বেতন কেটে দেয়া হয়।দীর্ঘদিন থেকে অধীনস্থ কর্মকর্তা-কর্মচারীর সঙ্গে এমন আচরণ করে আসলেও ভয়ে কেউ মুখ খোলেননি।

অবশেষে মেহদী হাসান নামের এক কর্মকর্তা ওই কোম্পানীর বিরুদ্ধে আইনী লড়াই শুরু করেছন।আইনকে তোয়াক্কা না করে উল্টো ওই কোম্পানী এখনো কৌশলে কর্মকর্তা-কর্মচারীদের ছাঁটাই করে যাচ্ছে বলেও অভিযোগ রয়েছে।

অরনা টেক্স লিমিটেড নরসিংদীর মাধবদী উপজেলার ছোট গদাইরচর এলাকায় অবস্থিত। সেই কোম্পানীতে ২০১৭ সালের ১ আগস্ট অ্যাকাউন্টস ম্যানেজার হিসেবে যোগদান করেন শরীয়তপুর জেলার জাজিরা উপজেলার জানখার কান্দি গ্রামের বাসিন্দা মাওলানা নূরুল হক খানের ছেলে মো. মেহেদী হাসান খান। প্রথম থেকেই তিনি সুনামের সঙ্গে ওই কোম্পানীতে কাজ করে যাচ্ছিলেন।

কিন্তু চলতি বছর তার বেতন বকেয়া হয়ে যায়। আড়াই মাসের বকেয়া বেতন না পেয়েও তিনি ১৬ এপ্রিল কর্মস্থলে যান।এ সময় তাকে কর্মস্থলে প্রবেশ করতে দেয়া হয়নি।পরবর্তীতে তিনি কোম্পানীর ডিজিএম, এক্সিকিউটিভ ডিরেক্টরের সঙ্গে যোগাযোগ করেন। কিন্তু বিষয়টি সম্পর্কে কোনো তথ্য না দিয়েই এখন পর্যন্ত তাকে চাকরি থেকে বিরত রাখা হয়েছে।

এক পর্যায়ে ১৯ মে নরসিংদী কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শকের কার্যালয়ে বিষয়টি মিমাংসার জন্য একটি আবেদন করেন।

এর পরিপ্রেক্ষিতে নরসিংদী কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শকের কার্যালয় থেকে অরনা টেক্স লিমিটেডের চেয়ারম্যান বরাবর একটি নোটিশ দেয়া হয়। ওই নোটিশে ২৯ মে শুনানির দিন ধার্য করা হয়।

নরসিংদী কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শকের কার্যালয়ের শ্রম কর্মমকর্তা তীর্থ নান্দী খায়ের স্বাক্ষরিত ওই নোটিশের পর শুনানিতে অরনা টেক্স লিমিটিডের চেয়ারম্যান বা তার পক্ষে থেকে কেউ আসেননি।

পরবর্তীতে ১২ জুন আবারো অরনা টেক্স লিমিটেডের চেয়ারম্যান বরাবর আরেকটি নোটিশ পাঠায় নরসিংদী কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শকের ওই কর্মকর্তা।

ওই নোটিশে সাত দিনের মধ্যে মেহেদী হাসানের বকেয়া বেতন পরিশোধের কথা বলা হয়।কিন্তু তারপরও বকেয়া বেতন পরিশোধ করা হয়নি।

এক পর্যায়ে ওই নোটিশের পরিপ্রেক্ষিতে ২৬ জুন মালিক পক্ষ বিষয়টি মিমাংসার জন্য বৈঠকে বসেন।কিন্তু এতেও তা সমাধান হয়নি।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে নরসিংদী কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শকের কার্যালয়ের শ্রম কর্মকর্তা তীর্থ্ নান্দী খায়ের বলেন, মেহেদী সাহেবকে মামলা দায়ের করার কথা বলা হয়েছে।মামলা দায়ের করা হলে বিষয়টি আইনীভাবে মিমাংসা করা হবে।

এদিকে বেকেয়া বেতন না দিয়ে চাকরি থেকে বাদ দেয়ায় এবং অরনা টেক্স লিমিটেডের পক্ষ থেকে ক্ষতি করা হতে পারে; এমন আশঙ্কা প্রকাশ করে রাজধানীর মতিঝিল থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেছেন মো. মেহেদী হাসান খান।

এ ব্যাপারে মেহেদী হাসান বলেন, আমার বেকেয়া বেতন না পাওয়াতে আমি আইনের আশ্রয় নেই।তবে বিষয়টি এখনো সমাধান হয়নি। উল্টো আমাকে বিভিন্নভাবে হুমকি-ধমকি দেয়া হচ্ছে। তাই ভয়ে আমি মতিঝিল থানায় একটি জিডি করেছি।

তবে এসব অভিযোগ সম্পর্কে জানতে চাইলে অরনা টেক্স লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মেনহাজুর রহমান রাজু ভূঁইয়া বিবার্তাকে বলেন, মো. মেহেদী হাসান খান আমার এখানে নিয়োগপ্রাপ্ত কোনো কর্মচারী নন। তিনি আমার এখানে মাঝে মাঝে কাজ করতেন।আর সেই কাজের বিনিময়ে টাকা নিতেন।



Comments





Pakkhik Sramik Awaz
Reg: DA5020
News & Commercial:
85/1 Naya Paltan, Dhaka 1000
email: sramikawaznews@gmail.com
Contact: +880 1972 200 275, Fax: +880 77257 5347

Legal & Advisory Panel:
Acting Editor: M M Haque
Editor & Publisher: Zafor Ahmad

Developed by: Expert IT Solution