sa.gif

‌'শ্রমিকদের বেতনসহ তিন মাসের ছৃুটি দাও, লে-অপ ছাটাই বন্ধ করো'
আওয়াজ প্রতিবেদক :: 18:30 :: Sunday April 26, 2020 Views : 62 Times

শ্রমিকদের তিন মাস সবেতনে ছুটি, লে-অফ ও ছাঁটাই বন্ধ এবং ভালুকায় শ্রমিক হত্যায় দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি ও নিহত প্রত্যেক শ্রমিক পরিবারকে আজীবন রোজগারের সমপরিমাণ ক্ষতিপূরণের দাবি জানিয়েছে গার্মেন্টস শ্রমিক অধিকার আন্দোলন।


ভালুকায় শ্রমিক নিহত হওয়া পরবর্তি ১০ এপ্রিল পত্রিকা অফিসে পাঠানো এক প্রেস বিজ্ঞপ্তি সংগঠনটি এ দাবি জানায়।

দেশে যখন লকডাউন অবস্থা বিরাজমান এবং বিভন্ন রাজনৈতিক দল, শ্রমিক সংগঠন গার্মেন্ট কারখানাসমূহ বন্ধ করার আহবান এবং স্বাস্থ বিশেষজ্ঞদের সুপারিশ সত্ত্বেও স্বাস্থ্যঝুঁকির মধ্যে অনেক কারখানা এখনো চালু রাখা, শ্রমিকদের ছাঁটাই, লে- অফ বন্ধ করা এবং ময়মনসিংহের ভালুকায় ক্রাউন ওয়্যার্স এ্যাপার‍েল প্রাইভেট লিমিটেড- এ শ্রমিক বিক্ষোভের ঘটনায় দুইজন শ্রমিক হত্যায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে গার্মেন্টস শ্রমিক অধিকার আন্দোলন।

অধিকার আন্দোলনের কেন্দ্রীয় পরিচালনা কমিটির সমন্বয়কারী অ্যাডভোকেট মাহবুবুর রহমান ইসমাইল, গার্মেন্টস শ্রমিক ঐক্য ফোরামের সভাপতি মোশরেফা মিশু, বাংলাদেশ ওএসকে গার্মেন্টস এন্ড টেক্সটাইল শ্রমিক ফেডারেশনের সভাপতি মোহাম্মদ ইয়াসিন, গার্মেন্টস শ্রমিক সংহতি সভাপ্রধান তাসলিমা আখতার, বাংলাদেশ গার্মেন্টস শ্রমিক মুক্তি আন্দোলনের সভাপতি শবনম হাফিজ, গার্মেন্টস শ্রমিক ফেডারেশনের সভাপতি মাসুদ রেজা, বিপ্লবী গার্মেন্টস শ্রমিক সংহতির সভাপতি মাহমুদ হোসেন, বিপ্লবী গার্মেন্টস শ্রমিক ফেডারেশনের সভাপতি অরবিন্দু বেপারী বিন্দু, গার্মেন্টস শ্রমিক আন্দোলনের সংগঠক বিপ্লব ভট্টাচার্য, বাংলাদেশের সোয়েটার গার্মেন্টস শ্রমিক ফেডারেশনের সভাপতি এএএম ফয়েজ হোসেন, গার্মেন্টস শ্রমিক সভা সভাপতি শামসুজ্জোহা প্রমুখ নেতৃবৃন্দ এক যুক্ত বিবৃতিতে এ সমস্ত ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন।

বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ বলেন, ২৬ মার্চ থেকে ৪ এপ্রিল পর্যন্ত করোনাভাইরাস জনিত পরিস্থিতির জন্য দেশে সাধারণ ছুটি ঘোষণা করা হয়। এতে অনেক শ্রমিক বাড়িতে চলে যান। অথচ ৫ এপ্রিল অবর্ণনীয় দুর্ভোগ ও কষ্ট করিয়ে শ্রমিকদের বাড়ি থেকে আনা হয় এবং অনেক শ্রমিকরা কারখানায় গিয়ে দেখে তাদের ছাঁটাই বা লে-অফ করা হচ্ছে।


যে রকম ন্যাক্কারজনক ঘটনা প্রকাশিত হয়েছে ক্রাউন ওয়্যার্স এপার‍্যাল প্রাইভেট লিমিটেড এর সৃষ্ট ঘটনায়। এ কারখানা শ্রমিকদের স্বাস্থ্য ঝুঁকির মধ্যেও কারখানা চালু রাখে এবং এ সময় শ্রমিকরা কাজে যোগদান করতে না পারায় প্রায় ৫ শতাধিক শ্রমিককে কারখানা কর্তৃপক্ষ ছাঁটাই করে।
৬ এপ্রিল শ্রমিকরা কাজে যোগদান করতে এসে ছাঁটাইয়ের নোটিশসহ তাদের বেতন পরিশোধ না করেই কারখানা বন্ধের নোটিশ টানানো দেখে শ্রমিকরা বিক্ষুব্ধ হয়ে কারখানা গেটের সামনে বিক্ষোভ করতে থাকে।

এ সময় কারখানার ম্যানেজমেন্ট, স্থানীয় মস্তান-সন্ত্রাসী এবং শিল্প পুলিশ এসে শ্রমিকদের বেধড়ক মারধোর, লাঠিপেটা, রাবার বুলেট ও টিয়ারশেল নিক্ষেপ করে।

এতে ২৫-৩০ জন শ্রমিক আহত হয়। পুলিশের টিয়ারশেলে শ্রমিকসহ আশাপাশের মানুষের চোখে জ্বালা- পোড়া শুরু হয় এবং শ্রমিকরা আত্মরক্ষার জন্য বিক্ষিপ্তভাবে বিভিন্ন দিকে ছুটাছুটি শুরু করে।

এসময় একটি ট্রাক নিয়ন্ত্রণহীন হয়ে ঢাকা- ময়মনসিংহ মহাসড়কের রোড ডিভাইডারের উপর উঠে গেলে দুইজন শ্রমিক নিহত হয়। নেতৃবৃন্দ শ্রমিক মৃত্যুর এ ঘটনার জন্য ক্রাউন ওয়্যার্স এপার‍্যাল এর মালিককে দায়ী করেন এবং এই ঘটনায় জড়িত সকল দোষীদের চিহ্নিত করা সহ ক্রাউন ওয়্যার্স এপার‍্যালের মালিককে দ্রুত গ্রেফতার এবং উপযুক্ত শাস্তির দাবি জানান বিবৃতিতে।

এছাড়া নিহত প্রত্যেক শ্রমিক পরিবারকে আজীবন রোজগারের সমপরিমাণ ক্ষতিপূরণ এবং দেশের সকল কারখানায় ছাঁটাই ও লে- অফ বন্ধ করার আহবান জানানো হয় বিবৃতিতে। একইসাথে চট্টগ্রাম নগরীর সাগরিয়া এলাকায় একজন পোশাক শ্রমিকের করোনা আক্রান্তের ঘটনা উল্লেখ করে শ্রমিকদের স্বাস্থ্য নিরাপত্তার জন্য নেতৃবৃন্দ তিন মাসের অগ্রিম বেতন দিয়ে দেশের সকল গার্মেন্টস কারখানা সবেতনে ছুটির আহবান জানান বিবৃতিতে।



Comments





Pakkhik Sramik Awaz
Reg: DA5020
News & Commercial:
85/1 Naya Paltan, Dhaka 1000
email: sramikawaznews@gmail.com
Contact: +880 1972 200 275, Fax: +880 77257 5347

Legal & Advisory Panel:
Acting Editor: M M Haque
Editor & Publisher: Zafor Ahmad

Developed by: Expert IT Solution