sa.gif

বাগেরহাটে ঘেরের বেড়িবাঁধে জনপ্রিয় হয়ে উঠছে কুল চাষ
আওয়াজ প্রতিবেদক :: 20:42 :: Monday January 30, 2017 Views : 31 Times

 বাগেরহাটে মৎস্য ঘেরের বেড়িবাধেঁ কুল চাষ জনপ্রিয় হয়ে উঠছে। এই কুল চাষ করে এলাকায় ব্যাপক সাড়া ফেলেছেন, বাগেরহাট সদরের গোটাপাড়া ইউনিয়নের নারায়ন চন্দ্র হালদার। প্রায় ৩৫ একর জমির ওপর কুল চাষে নিজে লাভবান হওয়ার পাশাপাশি, স্বাবলম্বী করেছেন এলাকার হতদরিদ্র বহু মানুষকে।

দুর থেকে দেখে ফুল বাগান ভেবে ভুল করলে, অবাক হবার কিছু নেই। কাঁচা-পাকা ফলের ভারে মাটিতে নুইয়ে পড়া কুল বাগানের এমন চোখ জুড়ানো দৃশ্য নিশ্চয়ই মুগ্ধ করার মতো। হাতে গোনা কয়েকটি আপেল ও নারকেল কুলের চারা লাগিয়ে যাত্রা শুরু করেন সদর উপজেলার গোটাপাড়া ইউনিয়নের নারায়ন চন্দ্র হালদার। পরে কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের সহযোগিতায়, মাছের ঘেরের ভেড়িবাঁধের প্রায় ৩৫ একর জমিতে, পুরো উদ্যোমে শুরু করেন কুলের চাষ। বাড়তে থাকে উৎপাদন। উৎপাদিত এসব কুল জেলার ছাড়িয়ে, চলে যায় রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে। এলাকার দরিদ্র পরিবারের লোকজন এই বাগানে কুল সংগ্রহের খন্ডকালীন কাজ করে, স্বচ্ছলতা ফেরানোর পাশাপাশি মেটান পরিবারের মৌসুমি ফলের চাহিদাও।

কুল তোলার কাজে নিয়োজিত শ্রমিক তপন, ফারুক, রেজাউলসহ একাধিক শ্রমিক বলেন, আমরা ২০ থেকে ২৫ শ্রমিক এক সংঙ্গে প্রতিদিন ৩০ থেকে ৪০ মন কুল তুলছি। এখানে কুল তোলার পাশাপাশি আমরা আনন্দ করে কুল পারছি ও স্বাদ করে খাচ্ছি। ঘেরে মাছ ভেড়িবাঁধে কুল চাষ সব মিলিয়ে ভালো ভাবে দিন পার করছি।

বাগেরহাট সদর উপজেলার গোটাপাড়া গ্রামের কুল চাষি নারায়ন চন্দ্র বলেন, প্রতিবছরের মত এবারও আমি কুল চাষ করেছি প্রায় ৩৫ একর জমির উপর। অন্য বছরের তুলনায় এবার ফলন ভালো। আমাদের ফল খুব মিষ্টি ও সুস্বাদু। ব্যবসায়ীরা আমার বাগানের কুল ক্রয় করে রাজধানীসহ চট্রগ্রাম, ফেনিসহ বিভিন্ন জেলায় নিয়ে যায়। বর্তমানে প্রতি কেজি নারকেল ও আপেল কুল ৬৫-৭০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে।

বাগেরহাট জেলা কৃষি সম্প্রসারন অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক মো. আফতাব উদ্দিন বলেন, মৎস্য ঘেরের ভেড়িবাধে কুল চাল দিনদিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। ইতি মধ্যে বাগেরহাট সদর উপজেলার কুল চাষি নারায়ন চন্দ্র কুল চাষে জাতীয় পুরুস্কার পেয়েছেন। সে প্রতিবছর কুল চাষ করে ৫০ থেকে ৬০ লাখ টাকা আয় করে থাকেন। তার দেখাদেখি অন্যান্য চাষিরা কুল চাষে আগ্রহী হচ্ছে এবং ভেড়িবাধে বাগান তৈরী করছে। আশাকরি ভবিষাতে কুল আবাদ আরো বৃদ্ধি পাবে। কারন ভেবিবাধের উপরে লবনাক্ততা কম থাকায় জনপ্রিয় হয়ে উঠছে এই কুল চাষ। এই কুল পুষ্টি চাহিদায় মেটাতে ভূমিকা রাখছে বলে দাবী করেন ওই কর্মকর্তা।



Comments





Pakkhik Sramik Awaz
Reg: DA5020
News & Commercial:
85/1 Naya Paltan, Dhaka 1000
email: sramikawaznews@gmail.com
Contact: +880 1972 200 275, Fax: +880 77257 5347

Legal & Advisory Panel:
Acting Editor: M M Haque
Editor & Publisher: Zafor Ahmad

Developed by: Expert IT Solution